বাংলাদেশ , শুক্রবার, ৫ জুন ২০২০

কলাতলী লাইটহাউস পাড়ার ত্রাস খোকা গ্রেফতার

প্রকাশ: ২০১৯-১১-১৩ ১৫:৩৯:৫৩ || আপডেট: ২০১৯-১১-১৩ ১৫:৩৯:৫৩

নিজস্ব প্রতিবেদক : পর্যটন শহর কলাতলী হোটেল-মোটেল জোনের ত্রাস খ্যাত সাদেক হোসেন খোকাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে মাদক, ছিনতাই, চাঁদাবাজি, অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায়সহ পতিতা ব্যবসার অভিযোগ রয়েছে। গত ১২ নভেম্বর সন্ধ্যায় সিএনজিসহ চালক আপহরণের ঘটনায় তাকে আটক করা হয়। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে সিএনজি ও নগদ টাকা উদ্ধার করে পুলিশ। তার গ্রেফতারের পর খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসী উল্লাস প্রকাশ করে। কারণ এ মাদক ব্যবসায়ী ও তার বাহিনীর অত্যচারে দীর্ঘদিন অতিষ্ঠ ছিল এলাকাবাসী। স্থানীয়রা জানায়, লাইটহাউস এলাকার চোরা ফরিদের ছেলে সাদেক হোসেন খোকা, ওরফে ডাকাত খোকা দীর্ঘদিন ধরে তার নিজ বাড়িকে (সরকারি জমি) হোটেল বানিয়ে সেখানে মাদক ও পতিতা ব্যবসা চালিয়ে আসছিল। পাশাপাশি সী-পার্ল হোটেলের সামনে অবৈধভাবে দুটি টং দোকান বসিয়ে সেখানেও মাদক ব্যবসা চালিয়ে আসছিল। এসব দোকান আবার খদ্দেরও যোগাড় করত। দোকান ছাড়াও আরো ১০-১২ জন ভ্রাম্যমান দালাল পর্যটন এলাকার বিভিন্ন মোড়ে ও হোটেলের সামনে অবস্থান নিয়ে চালায় মাদকের ব্যবসা। এরা ছিনতাই, চাঁদাবাজি ও জমি দখলসহ আরো নানা অপরাধেও জড়িত।
স্থানীয়রা আরো জানান, সম্প্রতি খোকার অবৈধ কর্মকান্ডের প্রতিবাদ করায় রিদুয়ান নামের এক যুবককে ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত করে খোকা। এর আগে স্থানীয় আবদুর সবুর কোম্পানীর এক কর্মচারিকেও অপহরণের পর মারধর করে খোকা বাহিনী।
লাইটহাউস এলাকার বাসিন্দা মোর্শেদা বেগম বলেন, খোকা বাহিনী প্রধান ও মাদক ব্যবসায়ী খোকাইয়ার অত্যাচারে আমরা এলাকাবাসী দীর্ঘদিন ধরে অতিষ্ঠ। কক্সবাজার পৌরসভার ১২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও আওয়ামীলীগ নেতা কাজী মোর্শেদ আহমদ বাবু ও স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা কাজী রাসেল আহমদ বলেন, এলাকার মানুষ প্রায়ই খোকার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ নিয়ে আসে। এলাকার মানুষ তার উপর চরম অতিষ্ঠ।
এ বিষয়ে কক্সবাজার সদর থানার ওসি আবু মো: শাহজাহান কবির বলেন, সন্ত্রাসী সাদেক হোসেন খোকাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

ট্যাগ :