বাংলাদেশ , বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০

ভাগ্য নির্ভর বিএনপি!

প্রকাশ: ২০২০-০৭-২৪ ০৮:৫৭:০৬ || আপডেট: ২০২০-০৭-২৪ ১২:৪৭:৫৯

গণসংযোগ ডেস্ক : আন্দোলন-সংগ্রাম বা কর্মপরিকল্পনার মাধ্যমে রাজনীতিতে ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি বিএনপি। নিজেরা কিছুই করতে না পেরে এখন ভাগ্যের ওপর সবকিছু ছেড়ে দিয়েছে দলটি। সম্প্রতি বিএনপিপন্থী রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও বুদ্ধিজীবীদের সঙ্গে কথা বলে এমনটাই জানা গেছে। তাদের ধারণা, আন্দোলন-সংগ্রামের নামে বারবার শক্তি ক্ষয় করে কিছুই পাওয়া যায়নি। তাছাড়া আন্দোলনের ডাক দিলেও সেখানে নেতাকর্মী খুঁজে পাওয়া যায় না। এমন অবস্থায় চুপচাপ থেকে কোন রকমে টিকে থাকতে পারলেই ভালো। একসময় না একসময় সুযোগ আসবেই, আর সেটাই কাজে লাগাতে চায় বিএনপি।
তারা মনে করেন, বারবার আন্দোলন-সংগ্রামের নামে বিএনপির জ্বালাও-পোড়াও কর্মসূচি দেশের মানুষের মনে নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। তারা আর বিএনপিকে বিশ্বাস করে না। ক্ষমতায় থাকাকালীন তাদের দুর্নীতি ও লুটপাটের কারণে সাধারণ মানুষ তাদের ওপর আস্থা হারিয়েছে।
এছাড়া বিএনপির রাজনীতি শুধু জিয়া পরিবারকেন্দ্রিক। তারা জনগণের জন্য রাজনীতি করে না। বিগত প্রায় ১৫ বছর ধরে জনগণের জন্য কিছুই করতে পারেনি। ফলে জনগণ তাদের দিক থেকে মুখ সরিয়ে নিয়েছে। এ অবস্থায় আবার নতুন করে আন্দোলন-সংগ্রাম করার শক্তি বা সাহস বিএনপির এখন নেই। তাই তারা এখন ভাগ্যের ওপর ভরসা করে আছে।
দলীয় সূত্র থেকে জানা গেছে, এক সময়ে বিএনপির মূল শক্তি ছিল ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল ও মহানগর কমিটি। দক্ষ নেতৃত্বের অভাব, মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি ও সাংগঠনিক দুর্বলতার কারণে প্রায় প্রতিটি সংগঠনই আজ নিষ্ক্রিয়। এমন অবস্থায় আন্দোলন-সংগ্রাম তো দূরের কথা অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতেই হিমশিম খাচ্ছে দলের হাইকমান্ড।
এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির একজন সিনিয়র ও দায়িত্বশীল নেতা বলেন, মামলার কারণে দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া আজ নিষ্ক্রিয়। দীর্ঘদিন ধরে লন্ডনে পলাতক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। পদ-পদবি হারানোর ভয়ে ও নিজেদের অবস্থান ধরে রাখতে তদবিরে ব্যস্ত সিনিয়র নেতারা। ফলে আজ নেতৃত্ব সংকটে বিএনপি।
তিনি বলেন, এই অবস্থায় দলের ভবিষ্যৎ সম্পর্কে কেউ কিছু জানেন না। দলের কর্মসূচি সম্পর্কে বা গতি সম্পর্কে কেউ কিছু বলতে পারে না। বর্তমান করোনা সংকটে জনগণের পাশে না দাঁড়িয়ে বিএনপি শুধু সরকারের সমালোচনা করছে। তারা ভাগ্যের জোরে ক্ষমতায় আসার অপেক্ষায় হয়েছেন।

ট্যাগ :