বাংলাদেশ , মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০

ত্রিদেশীয় টি২০ সিরিজ : আজ লড়বে বাংলাদেশ-জিম্বাবুইয়ে

প্রকাশ: ২০১৯-০৯-১২ ১৭:৫৩:৫৮ || আপডেট: ২০১৯-০৯-১২ ১৭:৫৩:৫৮

ক্রীডা ডেস্ক : ত্রিদেশীয় টি২০ সিরিজ শুরু হচ্ছে আজ। সিরিজের প্রথম ম্যাচেই লড়বে বাংলাদেশ ও জিম্বাবুইয়ে। ম্যাচটি শুরু হবে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায়। এই ম্যাচটির আগে বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা যেখানে বিধ্বস্ত অবস্থায় আছেন সেখানে জিম্বাবুইয়ের ক্রিকেটাররা আছেন ফুরফুরে মেজাজে। বাংলাদেশ ক্রিকেটারদের মাথায় মহাচিন্তা। জিম্বাবুইয়ের ক্রিকেটারদের বিশেষ কোন চিন্তাই নেই। বাংলাদেশ মাত্রই তিনদিন আগে আফগানিস্তানের কাছে টেস্টে হেরেছে। দেশের মাটিতে, আবার নবীন একটি দলের কাছে টেস্ট হারের যে ক্ষত তা এখনও তরতাজা। সেই ক্ষত দূর করে খুব ভাল খেলা কঠিন। জিম্বাবুইয়ে ক্রিকেটাররা যে খেলতে পারছেন তাতেই মহাখুশি। তাদের তো খেলারই কথা না। জিম্বাবুইয়ে বোর্ডে সরকারের হস্তক্ষেপে আইসিসি জিম্বাবুইকে ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত করেছিল। এখন সব ঠিকঠাক হচ্ছে। নতুনরূপে তাই জিম্বাবুইয়ে আবার ক্রিকেটে দাঁড়াতে চাচ্ছে। তাদের কাছে তাই এ সিরিজটি নিজেদের দেখানোর সুযোগ। তা না পারলেও খুব বেশি যে সমালোচনায় বিদ্ধ হবে এমন নয়। কিন্তু বাংলাদেশ যদি টেস্ট হারের পর ত্রিদেশীয় সিরিজেও খারাপ করে তাহলে দেশের ক্রিকেট নিয়ে হায় হায় রব উঠে যাবে।
টেস্টে যে দল ছিল বাংলাদেশের, টি২০তে সেই দলের অনেক পরিবর্তন আনা হয়েছে। আগামী বছর অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ায় হবে টি২০ বিশ্বকাপ। সেই বিশ্বকাপের জন্য দল ঘোষণা করতে তরুণদের সুযোগ করে দেয়া হয়েছে। কিন্তু দল গঠনের চেয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজে ভাল করাই বাংলাদেশের আসল মিশন। শিরোপা জিততে না পারলেও এবার সমালোচনায় বিদ্ধ হতে হবে। তাই জিম্বাবুইয়ের বিরুদ্ধে আজ সিরিজের প্রথম ম্যাচেই জয় তুলে নেয়া জরুরী হয়ে পড়েছে।
বিশ্বকাপে যে ভারতের বিরুদ্ধে হেরেছে বাংলাদেশ, সেই থেকে হেরেই চলেছে। বিশ্বকাপের পর শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে। আবার আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে টেস্ট খেলতে নেমেও হয়েছে নাস্তানাবুদ। বাংলাদেশ যে করেই হোক একটি জয়ের খোঁজে আছে। সেই জয় আজ মিলে গেলেই হলো। সাকিবের নেতৃত্বে দল আজ প্রায় নয়মাস পর টি২০ খেলতে নামবে। গত বছর ডিসেম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে সর্বশেষ টি২০ খেলেছিল বাংলাদেশ। সেই দল থেকেও বহু পরিবর্তন আনা হয়েছে। তবে যে দল গড়া হয়েছে তা শক্তিশালী দলই। এখন মাঠে নৈপুণ্য দেখানো গেলেই হলো। টেস্টেও বাংলাদেশ দল শক্তিশালীই ছিল। কিন্তু মাঠের লড়াইয়ে শুধু হারই হয়েছে। সাকিব আল হাসান, সৌম্য সরকার, লিটস কুমার দাস, মুশফিকুর রহীম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, মোসাদ্দেক হোসেন, তাইজুল ইসলাম টি২০তেও আছেন। সাব্বির রহমান, সাইফউদ্দিন, মুস্তাফিজুর রহমানও রয়েছেন। সঙ্গে তরুণ ক্রিকেটারদের মধ্যে ভবিষ্যত টি২০ দল গড়ার ভাবনায় আফিফ হোসেন, মেহেদী হাসান, ইয়াসিন আরাফাতকে নেয়া হয়েছে। এই দল নিয়ে এখন বাংলাদেশকে ত্রিদেশীয় সিরিজ জিততে হবে। জিম্বাবুইয়েকে হারিয়ে সেই মিশন শুরু করতে হবে।
সিরিজের প্রথমদিন জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের পর ১৫ সেপ্টেম্বর আফগানিস্তানের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। এরপর ১৮ সেপ্টেম্বর আবার বাংলাদেশ ও জিম্বাবুইয়ে লড়াই করবে। ২১ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান খেলবে। বাংলাদেশের প্রথম দুটি ম্যাচ মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে এবং শেষ দুটি ম্যাচ হবে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে। বাংলাদেশ যদি তিন দলের এ সিরিজে পয়েন্ট তালিকায় সেরা দুইয়ে থাকে তাহলে ২৪ সেপ্টেম্বর ফাইনালে খেলবে। সেই ম্যাচটি জিতলে শিরোপা ঘরে তুলবে। দেশের মাটিতে এখনও কোন দুইয়ের অধিক দল নিয়ে হওয়া সিরিজের শিরোপা জিততে পারেনি বাংলাদেশ। এবার সুযোগ আছে। কিন্তু সেই সুযোগ কাজে লাগাতে হবে।
জিম্বাবুইয়ে দলের নেতৃত্ব দেবেন হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। তার সঙ্গে অভিজ্ঞ ব্রেন্ডন টেইলর, শন উইলিয়ামস, ক্রেইগ অরভিন, ক্রিস এমপফু, রেজিস চাকাভা, রিচমন্ড মুতুম্বামি, কাইল জারভিস, তেন্ডাই চাতারা, টিমেসেন মারুমা, রায়ার্ন বার্ল, টনি মুনোঙ্গা, এইনন্সলে এ্যান্ডলভু, টিনোটেন্ডা মুতোমবোদজি ও নেভিল মাদজিভা রয়েছেন। মাসাকাদজা তো হার্ডহিটার। যেদিন খেলেন সেদিন প্রতিপক্ষকে দুমড়ে মুছড়ে দেন। মাসাকাদজার সঙ্গে টেইলর, অরভিন, উইলিয়ামস, মারুমারা আছেন। যে কোন একজন ব্যাট হাতে দাঁড়িয়ে গেলেই বিপদ। আর বল হাতে উইলিয়ামসের স্পিন আর বার্লের লেগস্পিন বিপদ ডেকে আনতে পারে। লেগস্পিন খেলতে যে বাংলাদেশ ব্যাটসম্যানরা হিমশিম খান।
অবশ্য খেলা টি২০ ফরমেটে। যে দল দিনটিতে নিজেদের মেলে ধরতে পারে তারাই শেষ পর্যন্ত জিতে। খেলা আবার সন্ধ্যায় শুরু। তাতে করে পেসারদের বিশেষ গুরুত্ব থাকবে। বাংলাদেশের মুস্তাফিজ তো আছেনই। সঙ্গে অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা ইয়াসিনের গতির ক্যারিশমা দেখার মিলতে পারে। তবে জিম্বাবুইয়ে দলেও জার্ভিস, চাতারা, মাদজিভার মতো পেসারদের বাংলাদেশ ব্যাটসম্যানদের সামলাতে হবে। বাংলাদেশ যেখানে প্রায় ৯ মাস পর টি২০ খেলতে নামছে, সেখানে কিন্তু জিম্বাবুইয়ে জুলাইয়েই টি২০ খেলেছে। টি২০ ক্রিকেটটাতে তাই জিম্বাবুইয়ের একটু স্বাচ্ছন্দ্যও থাকছে। তার মানে বাংলাদেশের সববিভাগেই ভাল করতে হবে। তা না হলে জেতা কঠিন।

ট্যাগ :